বিগিনারদের জন্য ব্লগিং টিপস

বিগিনারদের জন্য ব্লগিং টিপস

ব্লগিং, অনেকের পেশা আবার অনেকের নেশা। অনেকে শুধুই শখের বশে ব্লগিং করে থাকেন। তবে যে কারণেই কিংবা যেভাবেই করুন না কেন বেশি মানুষের কাছে পৌছাতে চাইলে এবং বেশি বেশি ভিজিটর পেতে চাইলে আপনার ব্লগিং স্টাইল হতে হবে অন্যদের থেকে আলাদা এবং অবশ্যই ইউজার এট্রাক্টিভ।

বিগিনারদের জন্য ব্লগিং টিপস
বিগিনারদের জন্য ব্লগিং টিপস

 

আজকের আর্টিকেলে ঠিক সেরকমই কিছু টিপস নিয়ে কথা বলব যেগুলো আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ারকে আরো সহজ এবং স্মুথ করে দেবে।

১। নিশ বা বিষয় খোঁজা

Statista এর একটা পরিসংখ্যান অনুযায়ী ব্লগার এর সংখ্যা ২০২০ সালে শুধুমাত্র US তেই হবে ৩১.৭ মিলিয়ন।

অর্থাৎ আপনি যদি এখন ব্লগিং শুরু করে তাহলে আপনি মূলত একটা বিশাল কম্পিটিশন এর মধ্যে পড়ে যাচ্ছেন। অবশ্য এই ভিড়ের মধ্য থেকে নিজেকে সফলতার চুড়ায় তুলে নেয়ার জন্য রয়েছে বেশ কিছু উপায়। এবং তার মধ্যে সবচেয়ে প্রথম হচ্ছে নিশ খোঁজা বা বিষয় খোঁজা।

নিশ অর্থ কী?

ওকে নিশ অর্থ হচ্ছে কোন একটা স্পেসিফিক টপিক এর উপর এক্সপার্ট হয়ে সেই বিষয়ে রিসার্চ করে লেখালেখি করা।

যেমন আপনি যদি একটা ট্রাভেল ব্লগ শুরু করেন তাহলে প্রথমেই আপনাকে ট্রাভেল এর উপর এক্সপার্ট হতে হবে। আপনি সারা বিশ্ব একবারে ট্রাভেল করে এক্সপার্ট হতে পারবেন না তাই কোন একটা স্পেসিফিক দেশ কিংবা স্থানের উপর ফোকাস করে সেটা নিয়েই লিখতে হবে।

বেশ ভালো পরিমাণ ইউজার এবং ভিজিটর পেয়ে গেলে তখন আপনি ইচ্ছামতো রিলেটেড টপিকের উপর ফোকাস চেঞ্জ করতে পারেন।

২। এমন বিষয়ে লিখুন যেটা মানুষ খুঁজছে

আমরা ইউনিক টপিক নিয়ে লিখতে গিয়ে এমন কিছু টপিকের উপর লিখে ফেলি যেগুলো নিয়ে মানুষ কখনো সার্চ যেমন করে না তেমনি কখনো ভিজিটর ও পাওয়া যায়না। তাই সব সময় চেষ্টা করা উচিত এমন কোন টপিকের উপর যেগুলো সাধারণত মানুষ খুঁজতে থাকে।

আপনি নিজেই চিন্তা করে দেখুন আপনি নিশ্চয় কারো ব্লগ এমনি এমনি পড়ে দেখবেন না তাইনা? বরং আপনি কোন প্রব্লেম এ পড়লে সেটা লিখে গুগলে সার্চ করবেন এরপরে প্রথমের দিকে যেই রেজাল্ট আসবে সেগুলোর মধ্য থেকে ভিজিট করবেন। তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে এমন কিছু টপিক থাকা উচিত যেগুলো আসলে কেউ খুঁজছে। তাছাড়া আপনার ব্লগ তেমন র‍্যাংক ও করবে না আর আপনি ভিজিটর ও পাবেন না।

এখন প্রশ্ন এমন বিষয় বা টপিক পাবেন কোথায়?

ওকে, এই সমস্যার সহজ সমাধান হচ্ছে গুগল ট্রেন্ড। গুগল ট্রেন্ড এ গিয়ে আপনি সহজেই দেখতে পাবেন যে আপনার এলাকার মানুষ কোন সময় কি টপিক নিয়ে বেশি সার্চ করছে এবং কোন টপিক ট্রেন্ডীং এ আছে। অর্থাৎ আপনার টার্গেট অডিয়েন্স কেমন বিষয় নিয়ে আগ্রহী সেটা আপনি জানতে পারছেন সহজেই যার মাধ্যমে খুব দ্রুত সঠিক টপিকে লেখালেখি করা সম্ভব।

৩। আপনার কম্পিটিটর কে ট্যাকল করুন

আপনি যে ধরনের ওয়েবসাইট বানিয়েছেনে কিংবা যে ধরনের ব্লগ নিয়ে কাজ করছেন তার অবশ্যই বেশ কিছু শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী আছে। এবং আপনি যখনই সেই টপিকে লিখে বেশি ভিজিটর পেতে চাইবেন খুব বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়াবে আপনার প্রতিদ্বন্দ্বী। তাই সবথেকে ভালো উপায় হচ্ছে আপনার প্রতিযোগী ব্লগ যে টপিকের উপর লিখে বেস্ট পারফর্ম করেছে আপনি ও সেই টপিকের উপরে আরো ভালো করে লেখার চেষ্টা করুন।

কোন ধরনের আর্টিকেল বেস্ট পারফর্ম করছে সেটা বোঝার জন্য তাদের সাইটের জনপ্রিয় পোস্ট ক্যাটেগরি দেখলেই সহজ ধারনা পাবেন।

৪। সার্চ কুয়েরির দিকে খেয়াল রাখুন

গুগল সবথেকে বেশি প্রাধান্য দেয় রিলেটেড সার্চ টপিক রেজাল্ট এর উপর। এবং আপনি যেহেতু সবসময় চাইবেন আপনার অডিয়েন্স যেন তাদের সমস্যা গুগলে সার্চ করে আপনার সাইট সহজেই পেয়ে যায় তাই সবথেকে ভালো উপায় হচ্ছে ভালো করে কুয়েরির দিকে খেয়াল রাখা। আপনি এমন ধরনের টপিক নিয়ে লিখবেন যেগুলো সাধারণত সার্চ কুয়েরির সঙ্গে সবচেয়ে সহজেই ফিট হয়।

উপরের কাজ করার জন্য বেস্ট উপায় হচ্ছে গুগল সার্চ করে দেখা কেমন টপিক এবং রিলেটেড রেজাল্ট সামনে আসছে।

৫। পোস্ট পড়তে যেন সমস্যা না হয়

সাধারণত কেউ ই পোস্ট পড়তে পছন্দ করেনা বরং তারা পছন্দ করে ইনফরমেশন। আপনি যদি কোন সিগ্নিফিসেন্ট টপিকের উপর লিখতে চান তাহলে সেই বিষয়ের ইনফরমেশন সহজ করে দিন। কারণ আপনার ভূমিকা কিংবা মতামতের তুলনায় আপনার ইনফরমেশন সবার কাছে বেশি জরুরি।

লেখার সময় যেসব বিষয় খেয়াল রাখবেন

– অবশ্যই ছোট ছোট প্যারাগ্রাফ লিখবেন
– লাইন এর মাঝে যথেষ্ট ফাকা জায়গা রাখবেন
– সহজে বোঝার এবং পড়ার মতো শব্দ ব্যবহার করুন।
– স্বাভাবিক এবং সহজ বাক্য লেখার চেষ্টা করুন।
– প্রয়োজন মতো ছবি বা ভিডিও বা অন্য ধরনের মিডিয়া সংযুক্ত করুন।
– ভালো করে ফরম্যাটিং করুন।

৬। টাইটেলের দিকে খেয়াল রাখুন

সহজ ভাষায় বলতে গেলে আপনার টাইটেল দেখেই মানুষ আপনার পোস্ট এ ক্লিক করবে। যদি টাইটেল সহজ এবং সুন্দর না হয় তাহলে কখনওই আপনি ভিজিটর পাবেন না।

ইফেক্টিভ টাইটেল লিখতে

– কিছু টেমপ্লেট ব্যবহার করুন
– SEO সাপোর্টেড টাইটেল লিখুন।
– অন্যদের ব্লগ থেকে শিক্ষা নিন

৭। অন-পেজ SEO করুন

খুব বেশি এডভান্স না হলেও আপনার পেজের অন পেজ SEO এর ব্যাসিক কাজ শেষ করে রাখা উচিত। অন পেজ SEO না করলে কখনওই আপনার সাইট গুগলের কাছে গুরত্তপুর্ন হয়ে উঠবে না।

অন পেজ এর জন্য কিছু টিপস

– আপনার টাইটেল অবশ্যই H1 ট্যাগ এর মধ্যে দিন
– আপনার কাঙ্ক্ষিত কী-ওয়ার্ড টি অবশ্যই ডেস্রিপশন সহ টাইটেল এ দিবেন।
– সংক্ষিপ্ত এবং বোঝা যায় এমন URL ব্যবহার করা ভালো।
– সব ইমেজের প্রয়োজনীয় alt ট্যাগ পূরণ করা উচিত।

৮। আপনার ভিজিটরের ফিডব্যাক নিন

আপনার লেখার সবথেকে ভালো ফিডব্যাক দিতে পারে আপনার ইউজার বা অডিয়েন্স বেজ। তাদের কমেন্ট কিংবা মেইলের মাধ্যমে মতামত গ্রহণ করে সেগুলো সমাধান করার চেষ্টা করা উচিত।

পরিশেষে

ব্লগিং বর্তমানের বেশ ট্রেন্ডিং এবং মজার একটা জব। আপনি শুধুমাত্র আপনার সৃজনশীল লেখার মাধ্যমেই সহজে আপনার জন্য ব্যক্তিগত কিংবা অনেকের জন্য ব্লগ লিখতে পারেন। তবে সেক্ষেত্রে আপনার সঠিক অডিয়েন্স এর কাছে পৌছাবার জন্য বেশ কিছু টিপস ফলো করা লাগে। এবং আজকের আর্টিকেলে আমরা সেটা নিয়েই আলোচনা করেছি।

ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, আসসালামু আলাইকুম।

You Might Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *