জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক

জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক
জাভাস্ক্রিপ্ট নামটির সঙ্গে যুগে যুগে ওয়েব প্রোগ্রামিং জুড়ে গেছে একাত্ম ভাবে। জাভাস্ক্রিপ্ট নামটি শুনলেই  আমার আপনার মতো সবারই প্রথমে মাথায় আসে ফ্রন্টেন্ড ডেভেলপমেন্ট এর কথা।
যদিও যুগের পরিবর্তনে আর নোড জে এস এর কল্যাণে জাভাস্ক্রিপ্ট এখন ফুলস্ট্যাক টুলস এ মুভ করেছে। আপনি এখন জাভাস্ক্রিপ্ট কে শুধু ফ্রন্টেন্ড বলতে গেলেই বাধা আসবে। কারণ নোড জে এস এর ব্যাপক জনপ্রিয়তায় জাভাস্ক্রিপ্ট এখন আর শুধু ফ্রন্টেন্ড এর জন্য বেস্ট চয়েস না বরং ফুলস্ট্যাক ল্যাঙ্গুয়াজে।
আর সেই অতি অসাধারণ জাভাস্ক্রিপ্ট এর আর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ফ্রেমোয়ার্ক নিয়ে কথা বলব ইনশাল্লাহ।

জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক
 জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক

কিন্তু তার আগে তো এটা জানা দরকার জে ফ্রেমোয়ার্ক কি তাইনা?

ফ্রেমোয়ার্ক কী?

জাভাস্ক্রিপ্ট দিয়ে আপনি যেমন ডোম ম্যানুপুলেশন এর মাধ্যমে ওয়েব সাইটে ইন্টার‌্যাক্টিভিটি আনতে পারেন তেমনি সাইটকে করতে পারেন ডাইনামিক। তবে সেই ক্ষেত্রে কিছু কাজ বারবার করা লাগে। আবার কিছু স্পেশাল কাজ করা হইয়ে পড়ে কঠিন। ঠিক সেজন্য কমিউনিটিউর সদয় ভালো প্রোগ্রামাররা তৈরি করেন নিত্য প্রয়োজনীয় লাইব্রেরি। আর এরকম বেশ কিছু লাইব্রেরির সংমিশ্রণে তৈরি হয় ফ্রেমোয়ার্ক। ফ্রেমওয়ার্ক মূলত একটা কারখানা মতো আর সেই কারখানার যন্ত্রপাতি গুলো হচ্ছে লাইব্রেরি। 
ওয়েট ওয়েট, ফ্রেমোয়ার্ক খুব বুঝেছি এখন ডাইরেক্ট কাজের কথায় আসা যাক। আমি এই লিস্ট টা জনপ্রিয়তা অনুসারে দিচ্ছি। অর্থাৎ প্রথম উল্লেখিত ফ্রেমোয়ার্ক সবচেয়ে জনপ্রিয় ২০২১ সাল এর ফেব্রুয়ারি অব্ধি। এর পরের টা ২য় তারপর ৩য় এভাবে। তাহলে প্রথমেই আসছে

এঙ্গুলার

IMG SRC: angular.io
আমার সবার প্রিয় বন্ধু গুগলের তৈরি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমোয়ার্ক হচ্ছে এই এঙ্গুলার। জব সংখ্যা, গিটহাব এ বেশি স্টার এরকম বেশ কিছু ফ্যাক্টর বিবেচনা করে নিঃসন্দেহে বলতে পারি এঙ্গুলার সবচেয়ে জনপ্রিয়। শুধুমাত্র স্ট্যাকোভারফ্লো এর এঙ্গুলার রিলেটেড কোয়েশ্চেন এঞ্ছার গুলোর সংখ্যাই বলে দেয় জে এঙ্গুলার কত্তটা জনপ্রিয়।
বাই দা ওয়ে, এখানে কিন্তু আমি এঙ্গুলার এর ২ ভার্শনের উপরের কথা বলছি। কারণ এঙ্গুলার ১ আর ২ এর মধ্যে আকাশ পাতাল পার্থক্য। গুগল সম্পুর্ন চেঞ্জ করার পরেই মূলত এঙ্গুলার এত জনপ্রিয়। ২০১০ সালে রিলিজ হওয়া এঙ্গুলার ব্যবহার করে টাইপ্সক্রিপ্ট জা জাভাস্ক্রিপ্ট এর ই একটা সাব স্ক্রিপ্ট বা সুপার স্ক্রিপ্ট । ওহ হ্যাঁ এটাও ওপেন সোর্স প্রোজেক্ট।
এঙ্গুলার প্রথমে শিখতে অনেক কাঠখড়ি পোড়ানো লাগলেও আপনি একটু পাকা হয়ে গেলে এঙ্গুলার  কে ভালোবেসে ফেলবেন এটা শিওর। মাইক্রোসফট, ম্যাক ডোনাল্ড, এপল, এডবির মতো মেইন স্ট্রিম বৃহৎ ওয়েব সাইট গুলো তাদের ফ্রন্টেন্ড এ যেমন এঙ্গুলার কে বেছে নিয়েছে তেমনি অনেক ছোট খাটো ওয়েব সাইট এখন এঙ্গুলার দিয়েই তৈরি হচ্ছে। আর সবচেয়ে বড় কথা, যার ডেভেলপার টিম গুগল তাকে নিশ্চয় ভরসা করা জায়। তাই শিখতে চাইলে শুরুটা আজকেই হওয়া ভালো।

রিয়াক্ট

এখন আমি যদি আপনাকে বলি রিয়াক্ট একটা ফ্রেমোয়ার্ক আর আপনি যদি সেইটা পাড়ার কোন এক্সপার্ট ভাইকে গিয়ে বলেন তাহলে নিশ্চিত আমি গালি খাবো। কারণ রিয়াক্ট একচুয়ালি একটা লাইব্রেরি তবে এর হিউজ ফিচার এর কারণে একে ফ্রেমোয়ার্ক বলতে আজকাল কেউ দ্বিধা করেনা। ২০১৩ সালে ফেসবুকের হাত ধরে রিলিজ হওয়ার পরে থেকে একে সবাই রিয়াক্ট, রিয়াক্ট জেএস নামেই চিনে আসছে।
ওপেন সোর্স, ফ্রি, ফ্রন্টেন্ড এই জাভাস্ক্রিপ্ট লাইব্রেরি টি জনপ্রিয় হয়েছে এর সহজ সিনট্যাক্স, কোড এর ক্লিন ফরম্যাট এবং ওয়েল ডকুমেন্টেশন এর জন্য। আর ডেভেলপার টিম হিসেবে ফেসবুক থাকায় তো আর কথায় নেই। খোদ ফেসবুক, উবার তাদের ওয়েব সাইটের জন্য ব্যবহার করে এই রিয়াক্ট।
আর শুধু কী ওয়েব সাইট, ন্যাটিভ ক্রস প্লাটফর্ম মোবাইল এপ এর জন্যও এর জাতভাই রিয়াক্ট ন্যাটিভ তো আছেই। সবকিছু মিলিয়ে রিয়াক্ট এখন সকল ফ্রন্টেন্ড ডেভেলপার এর চোখের মণি। ২২ অক্টোবর ২০২০ এ লাস্ট ভার্সন ১৭ রিলিজ হয়েছে। রিয়াক্ট লার্নিং কার্ভ টা বিগিনার ফ্রেন্ডলি। অর্থাৎ আপনি সহজেই বেশ অনেক কিছু রিয়াক্ট এ শিখতে পারবেন এবং ধীরে ধীরে এডভান্স হইয়ে গেলে সেটা ধরে রাখা একটু কঠিন হবে। তবে রিয়াক্ট এর হিউজ কমিউনিউটি আপনার সমস্যা সমাধানে তৈরি করে রেখে অজস্র প্লাগিন বা লাইব্রেরি। তাই শিখতে হলে ফ্রন্টেন্ড রিয়াক্ট বেস্ট চয়েস।

ভিউ

 

জনপ্রিয় সব ফ্রেমোয়ার্ক এর মধ্যে ভিউ হচ্ছে সবচেয়ে নবাগত সদস্য। ২০১৪ সালে এক্স গুগলার এভান ইউ ভিউ রিলিজ করেন। অন্যদের মতো এর ব্যাক প্লাটফর্ম শক্তপোক্ত না হওয়া সততেও এর জনপ্রিয়তা উত্তর উত্তর বেড়েই চলেছে। ২০২০ এর সেপ্টেম্বরে এর লেটেস্ট ভার্শন ৩ বাজারে এসেছে। প্রথমে ভিউ জাভাস্ক্রিপ্ট কে সাপোর্ট করলেও এখন শুধুমাত্র টাইপস্ক্রিপ্ট কে সাপোর্ট করছে।
মূলত এই চেঞ্জ এর পরে থেকেই ভিউ পেয়েছে লাইম লাইট। আলিবাবা গিটল্যাব এর মতো বড় কোম্পানিরাও এখন ভিউ ব্যবহার করেন। জব মার্কেট অন্যদের তুলনায় ছোট হলেও লিংকড ইন, ইন্ডিড এ ভিউ রিলেটেড জব সংখ্যা নেহাত কম নয়। তবে হ্যাঁ আপনি যদি গিটঠাব স্ট্যাটিস্টিক্স ব্যবহার করেন তাহলে ভিউ হবে সবথেকে জনপ্রিয়, কারণ ৬ হাজারের বেশি ওয়াচ, ২০০ হাজারের বেশি স্টার নিয়ে সবথেকে এগিয়ে ভিউ। এর ফ্লেক্সিবিলিটির কারণে বর্তমানে বাইডু সহ অনেকেই ভিউ ব্যবহার এ আগ্রহী হয়ে উঠছে।

সবশেষে

একচুয়ালি কোনটা ভালো বা খারাপ সেটা অনেক ফ্যাক্টর এর উপরেই নির্ভর করে তাই আপনি সহজেই কাউকে ভালো বলে বসে থাকতে পারবেন না। কাস্টমাইজ করা এবং শেখা সহজ এরকম চাইলে ভিউ বেস্ট। আর যদি একটু কষ্ট করে ফুল লেন্থ এ সব শিখে একদম প্রো হতে চান তবে এঙ্গুলার বেস্ট হবে। আর যদি সহজেই শিখে দ্রুত জব সেক্টরে জেতে চান তাহলে রিয়াক্ট এর উপরে কথা নাই। তবে লাইব্রেরির তুলনায় ল্যাঙ্গুয়েজ এবং এনফাস্ট্রাকচার এ বেশি ফোকাস থাকা উচিত। 
আজকে এই পর্যন্তই দেখা হবে ইনশাল্লাহ নেক্সট কোন আর্টিকেল এ।

You Might Also Like

2 Replies to “জাভাস্ক্রিপ্ট এর জনপ্রিয় ৩ টি ফ্রন্টেন্ড ওয়েব ফ্রেমওয়ার্ক”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *